বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর জীবনী বাংলা :

বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর জীবনী  কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স
 বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসুর জীবনী 
                         

প্রঃ বাংলার বীর বিপ্লবী শহীদ ক্ষুদিরামের জন্ম হয়েছিল কবে?
উঃ ১৮৮৯ সালের ৩ ডিসেম্বর।

প্রঃ তার জন্মস্থান বা পৈতৃক নিবাস কোথায় ?
উঃ মেদিনীপুর জেলার মৌবনী গ্রামে। (তার জন্মস্থান সম্পর্কে মতান্তর রয়েছে। অনেকের মতে হাবিবপুর গ্রাম।)

প্রঃ ক্ষুদিরাম বসুর পিতার নাম কী ?
উঃ ত্রৈলােক্যনাথ বসু।

প্রঃ বাল্যকালে ক্ষুদিরাম মাতৃহীন হয়ে কার কাছে মানুষ হয়েছিলেন?
উঃ তাঁর জ্যৈষ্ঠা ভগিনী অপরূপাদেবীর কাছে প্রতিপালন হয়েছিলেন।

প্রঃ তাঁর শিক্ষার বিকাশ ঘটে কোন স্কুলে ?
উঃ প্রথমে তমলুকের হ্যামিলটন স্কুলে ও পরবর্তীকালে মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে শিক্ষালাভ করেন।

প্রঃ তিনি কখন বিপ্লবী সংগঠন 'যুগান্তর' দলে যােগ দেন?
উঃ ১৯০২ সালে, ছাত্রাবস্থায়।

প্রঃ তাকে অগ্নিমন্ত্রে দীক্ষা দেন কে?
উঃ সত্যেন্দ্রনাথ বসু।

প্রঃ দীক্ষা দেবার আগে সত্যেন্দ্রনাথ তাকে কী প্রশ্ন করেছিলেন?
উঃ দেশের জন্য মরতে পারবি তাে।

প্রঃ উক্ত প্রশ্নের উত্তরে ক্ষুদিরাম কী জানিয়ে ছিলেন?
উঃ "পারব বই কি!”

প্রঃ ক্ষুদিরাম কবে নাগাদ দিদির আশ্রয় ত্যাগ করে চিরদিনের মত বিপ্লবীদলের আশ্রয়ে চলে আসেন ?
উঃ ১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গ আন্দোলনের সময়।

প্রঃ ক্ষুদিরাম কবে প্রথম রাজনৈতিক অভিযােগে অভিযুক্ত হন?
উঃ ১৯০৬ সালে।
প্রঃ ১৯০৬ সালে তিনি কোথায় কেন রাজনৈতিক অভিযােগে অভিযুক্ত হয়েছিলেন?
উঃ মেদিনীপুরে মারাঠা কেল্লায় কৃষি-শিল্প প্রদর্শনী মেলাতে বিপ্লবী পত্রিকা ‘সােনার বাংলা ' বিলির সময় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে গেলে তিনি পুলিশকে প্রহার
করে পলায়ন করেন। 
প্রঃ ১৯০৬ সালে কাসাই নদীর বন্যার সময়ে তিনি কীভাবে উদ্ধারকার্য চালান ?
উঃ রণপা-র সাহায্যে উপস্থিত হয়ে উদ্ধারকার্য চালান।
প্রঃ তিনি কবে কোথায় ডাকাতি করেছিলেন?
উঃ ১৯০৭ সালে বিপ্লবী সংগঠনে অর্থের প্রয়ােজনে মেলব্যাগ ডাকাতি করেছিলেন।
প্রঃ সেই সময় কলকাতার চীফ প্রেসিডেন্সী ম্যাজিস্ট্রেট কে ছিলেন ?
উঃ কিংসফোর্ড।
প্রঃ অত্যাচারী ম্যাজিষ্ট্রেট কিংসফোর্ডের ব্যাপারে বিপ্লবী দলের কী সিদ্ধান্ত হয় ?
উঃ হত্যার সিদ্ধান্ত।
প্রঃ সরকার নিরাপত্তার জন্য কিংসফোর্ডকে কোথায় বদলী করেন?
উঃ মজা:ফরপুরে ।
প্রঃ কিংসফোর্ডের হত্যার দায়িত্ব কোন বিপ্লবীদ্বয়কে দেওয়া হয় ?
উঃ ক্ষুদিরাম বসু ও প্রফুল্ল চাকীকে।
প্রঃ কবে কখন কোথায় কিংসফোর্ডের ফিটন গাড়ি মনে করে ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকী বােমা ছোড়ে?
উঃ ১৯০৮ সালের ৩০ এপ্রিল রাত্রি ৮টায় মজঃফরপুরস্থিত ইউরােপীয় ক্লাবের পাশাপাশি থেকে।
প্রঃ ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকীর ছোঁড়া বােমার বিস্ফোরণে কিংসফোর্ডের পরিবর্তে কারা মারা যান?
উঃ দুইজন নিরপরাধ ইংরেজ মহিলা। ব্যারিস্টার মিঃ কেনেডির স্ত্রী এবং কন্যা।

প্রঃ উপরিউক্ত ঘটনার পর করে কোথায় ক্ষুদিরামকে গ্রেপ্তার করা হয়?
উঃ ঐ ঘটনার পরের দিন ওয়াইনি স্টেশনে ক্ষুদিরাম ধরা পড়েন।
প্রঃ বন্দী করার পর ক্ষুদিরামকে কবে প্রথম আদালতে তােলা হয়?
উঃ ১৯০৮ সালে ২১ মে ম্যাজিস্ট্রেট মিঃ ই. বি. বার্থাভের দায়রা আদালতে।
প্রঃ এরপর ক্ষুদিরামের বিচার কোন আদালতে স্থানান্তরিত করা হয়?
উঃ মজঃফরপুর সেসন জজ মিঃ কর্নডফ-এর আদালতে।
প্রঃ মজঃফরপুর বােমা’ মামলায় সরকারী পক্ষের উকিল কে ছিলেন?
উঃ বাঁকিপুরের বিখ্যাত ব্যারিস্টার মিঃ মবলুক এবং সরকারী উকিল বিনােদবিহারী মজুমদার।
প্রঃ মামলা পরিচালনার দায়িত্বে ক্ষুদিরামের পক্ষে কে ছিলেন?
উঃ আইনজীবী কালিদাস বসু, সতীশচন্দ্র চক্রবর্তী এবং নৃপেন্দ্রনাথ লাহিড়ী।
প্রঃ ক্ষুদিরামের বিচার করে বিচারক কী রায় দেন ?
উঃ ফাঁসির আদেশ দেন।
প্রঃ দণ্ডাদেশ শােনার পর ক্ষুদিরামের প্রতিক্রিয়া কী?
উঃ হাসিমুখে জানান, মৃত্যুভয় আমার নেই
প্রঃ ভারত মাতার বীর বিপ্লবী ক্ষুদিরাম বসু কবে ফাঁসির দড়ি গলায় নিয়ে হাসিমুখে মৃত্যুবরণ করলেন?
উঃ ১৯০৮ সালের ১১ আগস্ট ভাের ৫টায়।
                              



১৯৬৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সুভাষচন্দ্র চলচ্চিত্রে এই গানটি ব্যবহার  করা হয়েছিল। সেখানে গানটির নেপথ্য শিল্পী ছিলেন লতা মঙ্গেশকর।ক্ষুদিরাম বসুর ফাঁসি উপলক্ষে প্রথম পুরুষে আখ্যানকবিতার আকারে এই দ্ব্যর্থবোধক গানটি রচিত, গানটি নীচে আলোচনা করা হলো ......


                       
" একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি।
হাসি হাসি পরব ফাঁসি দেখবে ভারতবাসী।

কলের বোমা তৈরি করে
দাঁড়িয়ে ছিলেম রাস্তার ধারে মাগো,
বড়লাটকে মারতে গিয়ে
মারলাম আরেক ইংলন্ডবাসী

হাতে যদি থাকতো ছোরা
তোর ক্ষুদি কি পড়তো ধরা মাগো
রক্ত-মাংসে এক করিতাম
দেখতো জগতবাসী

শনিবার বেলা দশটার পরে
জজকোর্টেতে লোক না ধরে মাগো
হল অভিরামের দ্বীপ চালান মা ক্ষুদিরামের ফাঁসি

বারো লক্ষ তেত্রিশ কোটি
রইলো মা তোর বেটা বেটি মাগো
তাদের নিয়ে ঘর করিস মা
ওদের করিস দাসী

দশ মাস দশদিন পরে
জন্ম নেব মাসির ঘরে মাগো
তখন যদি না চিনতে পারিস
দেখবি গলায় ফাঁসি । "


Post a Comment

If You Have Any Doubts, Please Let Me Know

নবীনতর পূর্বতন